27.3 C
Los Angeles
আগস্ট ১৫, ২০২০
News All Bangladesh
এক্সক্লুসিভ কুমিল্লা নির্বাচিত

গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হলে জিয়াউর রহমানের আদর্শকে অনুসরণ করতে হবে-ফরিদ উদ্দিন শিবলু

কুমিল্লা মহানগর ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন শিবলু বলেন, জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনতে এবং দেশে গণতন্ত্রের পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার জন্য রাজনীতি করি , বর্তমান সময়ে গণতন্ত্রের সঠিক ব্যবস্থা চালু নেই বললেই চলে, এদেশের সঠিক গণতন্ত্র নেই বলে জনগণ তাদের ভোটাধিকার হারাচ্ছে, বর্তমান সময়ে এই দেশের শাসনতন্ত্রের প্রতি জনগণের আস্থা অত্যান্ত নিম্ন মানের , রাষ্ট্রের গণতন্ত্র ব্যবস্থা অচল হয়ে যাওয়ার কারণে রাষ্ট্রের প্রতিটি নাগরিক তাদের অধিকার, দায়িত্ব এবং কর্তব্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, বাংলাদেশের রাজনীতিতে গণতন্ত্রের ব্যবস্থাকে সচল করতে হলে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শের রাজনীতি করার বিকল্প আর কোন কিছু নেই, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ছিলেন বাংলাদেশের রাজনীতিতে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সিংহ পুরুষ, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বাংলাদেশে সর্বপ্রথম কৃষকদের জন্য রাষ্ট্রীয় তহবিল নির্মাণ করেন, এই রাষ্ট্রীয় তহবিল এর থেকে কৃষি ঋণের ব্যবস্থা প্রচলন করেন এবং তার শাসন আমলেই কৃষকরা তাদের চোখে আশার আলো দেখতে পেয়েছিল, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ছিলেন একজন সত্যিকারের দেশ প্রেমিক, ১৯৭১ সালে তিনি দেশের স্বার্থে নিজের জীবন বিপন্ন করতেও দ্বিধাবোধ করেননি, তাই রণাঙ্গনে শত্রুর বিরুদ্ধে দেশকে রক্ষা করার জন্য সশরীরে শত্রুর বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন,
শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ছিলেন স্বাধীনতার প্রকৃত ঘোষক, চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা প্রদান করেন এবং তার এই ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ ঝাপিয়ে পরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে, দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ চলার পর স্বাধীন হয় আমাদের প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশ। দেশে স্বাধীনতার সূর্য উদিত হবার পরে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তার নিজ কর্মস্থলে ফিরে যান এবং এই সময়ে শেখ মুজিব দেশের রাষ্ট্র প্রধান হওয়ার স্বপ্ন দেখার প্রচেষ্টা চালায়, এক সময় তার প্রচেষ্টা সফল হয়, রাষ্ট্রপ্রধান হবার পূর্বে তিনি দেশের মানুষকে নানাভাবে উন্নয়নের স্বপ্ন দেখাতেন, পরবর্তী সময়ে বাংলার মানুষ তার থেকে উপহারস্বরূপ পেয়েছিল ১৯৭২-৭৫ এর দুর্ভিক্ষ, এই দুর্ভিক্ষের কারণে দেশের অবস্থা এমন হয়ে পড়ে যে, খাদ্যের অভাবে অনাহারে দেশের অনেক মানুষ মারা যায়, ইতিহাস থেকে জানা যায় এই দুর্ভিক্ষের কারণে খাদ্যের যোগান দিতে না পারায় মা তার পুরো পরিবারসহ ছোট ছোট বাচ্চা ছেলে মেয়ে নিয়ে একসাথে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তার কর্মস্থল থেকে আসার পরে দেশের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন এবং দেশকে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় নিয়ে যাওয়ার জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালান তিনি, তিনিই প্রথম বহির্বিশ্বের সাথে বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং বিভিন্ন চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন, বহির্বিশ্বের সাথে বাংলাদেশের সুন্দর সম্পর্ক গড়ার একমাত্র অবদান শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের, তিনিই বাংলাদেশে সর্বপ্রথম গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন,তিনি জনগণের অধিকার জনগণকে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন যে গনতন্ত্রের ধনী-দরিদ্রের মধ্যে কোন ভেদাভেদ ছিল না, রাষ্ট্রের প্রতিটি নাগরিক রাষ্ট্রের সমান সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবে, অন্ন, বস্ত্র, শিক্ষা, চিকিৎসা এবং বাসস্থান ছিল প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার, তিনি প্রথম আইনের শাসন এবং বিচার বিভাগকে স্বাধীনভাবে কার্য পরিচালনা করার জন্য সুযোগ করে দিয়েছিলেন, কিন্তু বর্তমান সময়ে সঠিক আইনের শাসন নেই বললেই চলে, আর বিচার বিভাগ চলে সরকারি দলীয় লোকদের আঙ্গুলের ইশারায়, তাই জনগণ আইনের শাসন এবং বিচার বিভাগের উপর থেকে তাদের আস্থা হারাচ্ছে প্রতিনিয়ত,

তাই বাংলাদেশের সঠিক গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার জন্য শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুসরণ এবং অনুকরণ করার কোন বিকল্প নেই।

Related posts

জেলা হচ্ছে লাকসাম! বরুড়াবাসী যুক্ত হতে আপত্তি

Riaj uddin Rana

বরুড়ায় জয়কামতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভারী বৃষ্টি চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের দিয়ে মাটি এনে মাঠে ফেলা হয়

Riaj uddin Rana

মার খেয়েও ক্যামেরা সরাননি নারী সাংবাদিক

zoshim

Leave a Comment